BD News Entertainment News Recent Post

শিক্ষা ব্যবস্থাকে উন্নত করতে বিদেশ থেকে শিক্ষক আনা হবে (প্রধানমন্ত্রী)

Share this

শিক্ষার উন্নয়নে প্রয়োজনে বিদেশ থেকে শিক্ষক আনার প্রস্তাব দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদে বাজেট বক্তৃতার সময় প্রধানমন্ত্রী এ প্রস্তাব দেন। বাজেট অধিবেশনে অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তাফা কামাল অসুস্থ বোধ করায় তার পক্ষ থেকে বাজেট উপস্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী।

এ সময় জাপানের সম্রাট মেইজির উদাহরণ টেনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মেইজির সময়ে জাপান শিক্ষায় অনগ্রসর ছিল। তখন তিনি অনুধাবন করেন জাপানে ছাত্রের অভাব নেই, আছে উপযুক্ত শিক্ষকের অভাব। তাই তিনি প্রযুক্তি নির্ভর প্রশিক্ষিত কয়েক হাজার শিক্ষককে জাপান নিয়ে আসেন। এভাবে জাপান জ্ঞান বিজ্ঞান অগ্রসর হয় এবং পাশ্চাত্যের দেশগুলোকেও ছাড়িয়ে যায়।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের সময় এসেছে জাপানের সম্রাট মেইজিকে অনুকরণের এবং শিক্ষার উন্নয়নে এসব কাজ আমরা কাল থেকেই শুরু করতে চাই।

২০১৯-২০ অর্থবছরের বাজেটে শিক্ষা উন্নয়ন খাতে ৬১ হজার ১১৮ কোটি টাকা বরাদ্দের প্রস্তাব করা হয়েছে। যা এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে বেশি। ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরের তুলনায় ৮ হাজার ৫৪ কোটি টাকা বেশি। শিক্ষা খাতে ২০১৮-১৯ সালে ৫৩ হাজার ৬৪ কোটি টাকা বরাদ্দ ছিল। বৃহস্পতিবার বিকেলে জাতীয় সংসদে উত্থাপিত ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের বাজেটে এ প্রস্তাব করেন অর্থমন্ত্রী অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

 

আসন্ন বাজেটে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা বাবদ ২৪ হাজার ৪১ কোটি টাকা, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষায় ২৯ হাজার ৬২৪ কোটি টাকা এবং কারিগরি ও মাদ্রাসা শিক্ষায় ৭ হাজার ৪৫৩ কোটি টাকা বরাদ্দ রাখা হয়েছে। ২০১৯-২০ অর্থবছরে মোট বাজেট পেশ করা হয়েছে ৫ লাখ ২৩ হাজার ১৯০ কোটি টাকা। আর শিক্ষাখাতে সর্বমোট বরাদ্দ রাখা হয়েছে ৬১ হাজার ১১৮ কোটি টাকা। যা মোট বাজেটের ১১ দশমিক ৬৮ শতাংশ।

বাজেট প্রস্তাবনায় বলা হয়, বিশ্বে এখন তৃতীয় শিল্প বিপ্লব থেকে চতুর্থ শিল্প বিপ্লবে উত্তরণের পথে। বিশ্বের সাথে পাল্লা দিয়ে আমাদেরকেও তৈরি হতে হবে। না হলে সামনে অগ্রসর হওয়া আমাদের জন্য দুরূহ হবে। তাই আমাদের ক্লাসরুমগুলো বিষয় উপযোগী করে তুলতে হবে, যেখানে শেখানো হবে ন্যানো টেকনোলজি, বায়োটেকনোলজি, রোবোটিক্স, আর্টিফিশিয়াল ইনটেলিজেন্স, ম্যাটেরিয়াল সাইন্স, ইন্টারনেট অব থিংস, কোয়ান্টাম কম্পিউটিং, ব্লকচেইন টেকনোলজি প্রভৃতি। এই সকল বিষয়ে শিক্ষা গ্রহণ এখন সময়ের দাবী। প্রধানমন্ত্রী নিজেও এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য সংশ্লিষ্ট সকল মন্ত্রণালয়কে নির্দেশনা দিয়েছেন।

এছাড়া ২০১৯-২০ অর্থবছরে জাতীয় স্কুল ফিডিং নীতি প্রণয়ন কর্মসূচীর আওতায় সারাদেশে ৫০৩টি মডেল প্রাথমিক বিদ্যালয় করার কথা জানিয়েছে সরকার। প্রাথমিক শিক্ষাখাতের বাজেটে বলা হয়ছে, স্কুল ফিডিং কার্যক্রমে স্থানীয় ব্যক্তিসহ বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি এবং সামগ্রিক কার্যক্রম সম্প্রসারণ ও সমন্বিতভাবে বাস্তবায়নের জন্য আগামী ২০১৯-২০ অর্থবছরে জাতীয় স্কুল ফিডিং নীতি প্রণয়ন করা হবে। শিক্ষার গুণগত মান উন্নয়নের লক্ষ্যে ডিজিটাল প্রাথমিক শিক্ষা শীর্ষক একটি পাইলট প্রকল্প গ্রহণ করা হবে।

সুত্র: bongokhobor.com

About the author

bahar babu

Leave a Comment